ঢাকা ১০:১৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দেশে ৫০ বছরের মধ্যে রেকর্ড তাপপ্রবাহ

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:২২:১০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৮ জুন ২০২৩ ১৭৪ বার পড়া হয়েছে

দেশে ৫০ বছরের মধ্যে রেকর্ড তাপপ্রবাহ

শাদমান খাঁনঃবাংলাদেশের উপর দিয়ে বয়ে যাচ্ছে ভয়াবহ তাপপ্রবাহ। গত ৫০ বছরের মধ্যে যা রেকর্ড দীর্ঘ তাপপ্রবাহ। সে কারণে সাময়িকভাবে দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। তাপপ্রবাহের সাথে ব্যাপক বিদ্যুৎ বিপর্যয় মানুষের দুর্দশাকে বাড়িয়ে দিয়েছে। মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক প্রভাবশালী সংবাদমাধ্যম খালিজ টাইমস ও গাল্ফ নিউজের প্রতিবেদনে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।
প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দক্ষিণ এশিয়ার দেশটির রাজধানী ঢাকায় তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশেপাশে থাকছে। তাতে সবচেয়ে বেশি ভুগছে গরিব মানুষ।সবচাইতে বেশি কষ্টে আছেন শিশু, বৃদ্ধ মানুষ।গবাদি পশুদের অবস্থা ও খুবই খারাপ। বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তরের ঊধ্বর্তন কর্মকর্তা বজলুর রশীদ বলেন, ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর এত দীর্ঘ তাপপ্রবাহ আমরা আর দেখিনি।
তীব্র গরমের মধ্যে নাটকীয়ভাবে বিদ্যুৎ উৎপাদনও কমে গেছে। এদিকে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর সতর্ক করে বলেছে, শিগগিরই গরম কমছে না।তবে আশার আলো হিসেবে আজ ০৮/০৬/২৩ সকাল থেকে দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি দেখা দিয়েছে।রাজধানীতে মানুষ যেন প্রাণ ফিরে পেয়েছেন। বিজ্ঞানীরা বলছেন, গ্রীষ্মের মাসগুলোতে এদেশে আরও ঘন ঘন, তীব্র ও দীর্ঘতর তাপপ্রবাহে অবদান রাখছে জলবায়ু পরিবর্তন।
বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, সাম্প্রতিক মাসগুলোতে প্রায়শই বিদ্যুৎ বিভ্রাটে বাংলাদেশের অর্থনীতি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বিশেষ করে পোশাক খাত, যা দেশটির মোট রপ্তানির ৮০ শতাংশ। তীব্র গরমে অসুস্থ হয়ে অনেকে চিকিৎসার শরণাপন্ন হচ্ছেন।

দেশে ৫০ বছরের মধ্যে রেকর্ড তাপপ্রবাহ

আপডেট সময় : ০৪:২২:১০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৮ জুন ২০২৩

দেশে ৫০ বছরের মধ্যে রেকর্ড তাপপ্রবাহ

শাদমান খাঁনঃবাংলাদেশের উপর দিয়ে বয়ে যাচ্ছে ভয়াবহ তাপপ্রবাহ। গত ৫০ বছরের মধ্যে যা রেকর্ড দীর্ঘ তাপপ্রবাহ। সে কারণে সাময়িকভাবে দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। তাপপ্রবাহের সাথে ব্যাপক বিদ্যুৎ বিপর্যয় মানুষের দুর্দশাকে বাড়িয়ে দিয়েছে। মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক প্রভাবশালী সংবাদমাধ্যম খালিজ টাইমস ও গাল্ফ নিউজের প্রতিবেদনে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।
প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দক্ষিণ এশিয়ার দেশটির রাজধানী ঢাকায় তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশেপাশে থাকছে। তাতে সবচেয়ে বেশি ভুগছে গরিব মানুষ।সবচাইতে বেশি কষ্টে আছেন শিশু, বৃদ্ধ মানুষ।গবাদি পশুদের অবস্থা ও খুবই খারাপ। বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তরের ঊধ্বর্তন কর্মকর্তা বজলুর রশীদ বলেন, ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর এত দীর্ঘ তাপপ্রবাহ আমরা আর দেখিনি।
তীব্র গরমের মধ্যে নাটকীয়ভাবে বিদ্যুৎ উৎপাদনও কমে গেছে। এদিকে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর সতর্ক করে বলেছে, শিগগিরই গরম কমছে না।তবে আশার আলো হিসেবে আজ ০৮/০৬/২৩ সকাল থেকে দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি দেখা দিয়েছে।রাজধানীতে মানুষ যেন প্রাণ ফিরে পেয়েছেন। বিজ্ঞানীরা বলছেন, গ্রীষ্মের মাসগুলোতে এদেশে আরও ঘন ঘন, তীব্র ও দীর্ঘতর তাপপ্রবাহে অবদান রাখছে জলবায়ু পরিবর্তন।
বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, সাম্প্রতিক মাসগুলোতে প্রায়শই বিদ্যুৎ বিভ্রাটে বাংলাদেশের অর্থনীতি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বিশেষ করে পোশাক খাত, যা দেশটির মোট রপ্তানির ৮০ শতাংশ। তীব্র গরমে অসুস্থ হয়ে অনেকে চিকিৎসার শরণাপন্ন হচ্ছেন।